স্থানান্তরের আতান্তরে

আবার সে এসেছে ফিরিয়া! এক্কেবারে পাগলা দাশুর স্টাইলে এনট্রি নিয়ে।

সুধীজন, হঠাৎ করে হাপিস হয়ে যাওয়ার জন্য যারপরনাই দুঃখিত। শেষবার আপনাদের সঙ্গে কথা হবার পরে পরেই জীবন বাবাজী – হ্যাঁ, হ্যাঁ, ওই দৈনন্দিন জীবনের কথাই বলছি – হঠাৎ এসে কলার চেপে ধরল, কঠিন গলায় জিজ্ঞেস করল, “ইয়ার্কি হচ্ছে, চাঁদু? সামনে একটা বড় কাজ পড়ে রয়েছে, তার বন্দোবস্ত কে করবে?” খ্যাঁচানি খেয়ে সম্বিত ফিরল, সত্যিই তো, মার্চের মাঝামাঝি আমাদের বাড়ি বদল করার কথা – তার তো গোছগাছ শুরু করতে হয়।

বিস্তারিত পড়ুন