হনুমানের প্রতিশোধ

আগের দিন শাখামৃগোপাখ্যান লিখতে গিয়ে মা-এর সঙ্গে বাঁদরের বাঁদরামি নিয়ে অনেক গল্প হয়েছিল। তাতেই ধীরে ধীরে জানতে পারলাম যে উক্ত প্রাণীকূলের সঙ্গে আমাদের বেশ খানদানী সম্পর্ক – তাই বেশ কয়েকটি রোমহর্ষক কাহিনী থলের ভিতর থেকে বেরিয়ে পড়লো। সেই ঘটনাসমূহ সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিতে না পারলে আমার ঠিক প্রাণে শান্তি হচ্ছে না। অতএব, সাধু সাবধান… এই ঝুলি নড়ছে, এ-এ-ই ঝুলি নড়ছে…

বিস্তারিত পড়ুন

Advertisements

আরামকেদারায় বসে দুই পা নাচাই রে…

সেই যে ওয়ার্ডেন-এর গল্প করেছিলাম আমার তৃতীয় পোস্ট-এ, আর এই যে চেয়ার-এর গল্প বললাম আমার অষ্টম পোস্ট-এ – দুটোর মধ্যে একটা চমৎকার ছেদবিন্দু আছে, তার নাম ইজি-চেয়ার, বা আরামকেদারা। ছেদবিন্দু বা ইন্টারসেকশন বললাম বটে, কিন্তু বোধহয় একটু অঙ্কের সাহায্য নিতে হবে, একটা ভেন ডায়াগ্রাম আঁকতে হবে, অনেকটা ধরুন এইরকম।

আমি আবার অঙ্কে বেশ কাঁচা, তাই ভুলত্রুটি হলে একটু ক্ষমাঘেন্না করে নেবেন।

বিস্তারিত পড়ুন

চেয়ার-এর চে’ আর বিপজ্জনক কিছু আছে নাকি?

চেয়ার বা কেদারা বা কুর্সি বা আসন – ইত্যাদি দেখলে আপনাদের কি অনুভূতি হয়, বন্ধুরা? ধরুন, অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে কাজ করছেন বা হাঁটাহাটিঁ করে এসেছেন, হঠাৎ একটা চেয়ার দৃষ্টিগোচর হল, ঠিক তখন মাথায় কি ধরণের চিন্তা খেলে যায়? ইচ্ছে করে না, তৎক্ষণাৎ কাছে টেনে নিয়ে গা টা এলিয়ে দেন? ক্লান্ত কোমরটাকে দু’দণ্ড একটু শান্তি দেন? হয়রান হাঁটুদুটো খানিক জিরিয়ে নেন? সাধু সাবধান। এই চেয়ার অতিশয় বিপজ্জনক বস্তু – অত্যন্ত খামখেয়ালি, এই মুহূর্তে আছে বলে যে পরের মুহূর্তেও স্বস্থানে থাকবে, এরকম কোন গ্যারান্টি কেউ দিতে পারেনা।

বিস্তারিত পড়ুন